নিউজ ডেস্ক

মুুক্তিযোদ্ধা পুনর্বাসন সোসাইটির বিজয় দিবস পালন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: মুক্তিযোদ্ধা পুনর্বাসন সোসাইটির উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) বেলা ১১ টায় নগরীর বায়েজীদ লিংক রোডস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আহসান উদ্দিন খাঁনের সভাপতিত্বে ও আইন এবং মানবাধিকার বিষয়ক উপদেষ্টা হাসানুল আলম মিথুনের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন, সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক সেনা কর্মকর্তা মো. আবদুল আউয়াল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ফজলুল হক, সাধারণ সম্পাদক, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক সেনা কর্মকর্তা মো. জহিরুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. হেফাজুতুল মাওলা, বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদার আব্দুল হাই, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধার কণ্যা রাজিয়া খানম প্রিয়া, এডভোকেট এরশাদুল আজম, মো. জাহিদুল ইসলাম চৌধুরী, মো. মাহাবুবুর রহমান, মাহবুবুল আলম, সরোয়ার আলম চৌধুরী, বিধান চৌধুরী, নাছির উদ্দীন চৌধুরী রতন, ইসমাইল হোসেন, কাজী জাহাঙ্গীর আলম, মো. কালাম, কফিলুল করিম শিকদার, মিল্টন সেন, এস এম হাবিব উল্লাহ, এস এম রাসেল ও পলাশ দত্ত সহ পরিচালনা কমিটির সদস্যরা।

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সভাপতির বক্তব্যে মো. আহসান উদ্দিন খাঁন বলেন,”একমাত্র বঙ্গবন্ধুর বিচক্ষণ নেতৃত্ব ও নিদের্শনায় আমরা বিজয়ের স্বাদ গ্রহণ করতে পারছি। বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে নিঃস্বার্থভাবে সেদিন কৃষক শ্রমিক ছাত্র জনতা নিজের জীবনের মায়া না করে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ মুক্তিযোদ্ধার প্রাণ ও ২ লাখ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে আজকের এই বিজয়। স্বাধীন সোনার বাংলা। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছেন তাঁরই সুযোগ্য কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর অক্লান্ত পরিশ্রম ও বিচক্ষণতায় দেশ আজকে বিশ্বের উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। জাতির জনকের লালিত স্বপ্ন ও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে ক্ষমতায় আনার জন্য সকলের সহযোগীতা কামরা করেন।”
তিনি বলেন, ”২০৩০ সালে বাংলাদেশকে সম্পূর্ণ দারিদ্র বিমোচন ও ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে ধাপে ধাপে প্রচেষ্টা চলমান রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শহীদদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত এই বিজয়ের সুফল জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সম্মিলিত চেষ্টার কোন বিকল্প নেই। তাই যার যার অবস্থান থেকে সংগঠিতভাবে জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা দেশরতœ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে তাঁর যে দিকনির্দেশনা তা মেনে চলার আহ্বান জানান।”

 

মন্তব্য করুন