নিউজ ডেস্ক

মহান বিজয় দিবসে হোটেল রেস্টুরেন্ট কর্মচারী ফোরাম অব প্রজন্ম চট্টগ্রাম’র শ্রদ্ধাঞ্জলি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: বাঙালি জাতির ইতিহাসে মুক্তিযুদ্ধ এক গৌরবময় বিজয়গাঁথা। সুদীর্ঘ আন্দোলন ও সংগ্রামের মধ্য দিয়ে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে অজিত হয়েছিলো স্বাধীনতার লাল সবুজ পতাকা। স্বাধীনতার ৫২ বছর পূর্তিতে মহান বিজয় দিবস ২০২৩ (মুক্তিযুদ্ধের শহিদ, আত্মদানকারী ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের) যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের লক্ষ্যে বৃহত্তর চট্টগ্রাম’র মুক্তবুদ্ধি চর্চার স্বেচ্ছাসেবী ও মানবাধিকার সংগঠন ‘প্রজন্ম চট্টগ্রাম’র পরিচালনায়, কনজিউমার রাইটস অব প্রজন্ম চট্টগ্রাম ও হোটেল রেস্টুরেন্ট কর্মচারী ফোরাম অব প্রজন্ম চট্টগ্রাম এর যৌথ আয়োজনে, বহদ্দারহাট কাশবন রেস্টুরেন্ট ও ভোজন বাড়ী রেস্তোরাঁর সহযোগিতায়, গত ১৬ ডিসেম্বর, শনিবার, সকাল ১০ টায় ভোজন বাড়ি রেস্তোরাঁর সামনে থেকে চান্দগাঁও এখলাছুর রহমান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শহীদ মিনারে “ফুলেল শ্রদ্ধাঞ্জলি ও আলোচনা সভা” (বহদ্দারহাট পুলিশ বক্সের বিপরীত) অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ও হোটেল রেস্টুরেন্ট কর্মচারী ফোরাম অব প্রজন্ম চট্টগ্রাম’র প্রধান সমন্বয়কারী সাংবাদিক চৌধুরী জসীমুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের মুক্তির সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের গবেষণা কেন্দ্র-ট্রাস্ট চট্টগ্রাম’র চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহফুজুর রহমান, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক সহকারী পরিচালক ও মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত বিশেষ গেরিলাযুদ্ধা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী পেশাজীবী লীগ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সহ সভাপতি মোহাম্মদ ইমরান হোসেন, বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সিঞ্চন ভৌমিক, কাশবন রেস্টুরেন্ট পরিচালনা পরিষদের অন্যতম পরিচালক মো. মাহবুবুল হাসান, ভোজন বাড়ী রেস্তোরাঁ পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসাইন রাসেল ও পরিচালক হাফেজ মুহাম্মদ আশরাফ উদ্দিন।

প্রজন্ম চট্টগ্রাম’র সাধারণ সদস্য ও বাংলা প্রচলন উদ্যোগের প্রতিনিধি মো. কাউসার উদ্দিনের পরিচালনায় অন্যান্যদের মধ্যে কাশবন রেস্টুরেন্ট কর্মচারীদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মো. হাফেজুল ইসলাম, মো. মোবিনুল ইসলাম, মো. জাহেদুল ইসলাম, মো. মোজাম্মেল হক, মো. কামরুল ইসলাম ও জয় ত্রিপুরা। ভোজন বাড়ি রেস্তোরাঁ কর্মচারীদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মো. মাসুম বিল্লাহ, মো. ফারুক হোসাইন, মো. বাবুল হোসেন, মো. ফজলে আকবর ফয়সাল, মোহাম্মদ সাগর ইসলাম, মোহাম্মদ সায়েম, মোহাম্মদ কামাল, মোহাম্মদ জিসান ও মো. ইসরাফিল।

মন্তব্য করুন