নিউজ ডেস্ক

অর্থহীন নির্বাচনে দুই হাজার কোটি টাকা নয় ছয়ের হিসাব জণগণকে দিতে হবে: ডা. শাহাদাত হোসেন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, দেশের জনগণের কষ্টার্জিত টাকা লুট করে বিদেশে পাচার করেছে আওয়ামীলীগ সরকার। আজকে দেশের অর্থনীতির করুণ অবস্থা। সিপিডির হিসাব অনুযায়ী, শুধু ব্যাংক খাত থেকে অনিয়মের মাধ্যমে ৯২ হাজার কোটি টাকা লুটপাট করা হয়েছে। এখন সেই লুটের টাকা ডামি ভোটে ঢালছে আওয়ামীলীগ। আজকে আওয়ামী লীগ সরকার বিরোধী দল ছাড়াই একতরফা ডামি নির্বাচনের আয়োজন করেছে। গায়ের জোরে রাষ্ট্র যন্ত্র ব্যবহার করে নিশিরাতের প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতা নবায়ন করার চেষ্টা করছে। অথচ এই নির্বাচনকে শুধু বাংলাদেশের জনগণ নয়, গণতান্ত্রিক বিশ্বও প্রত্যাখ্যান করেছে। জাতিসংঘ ও অস্ট্রেলিয়া এই পাতানো নির্বাচনে কোনো পর্যবেক্ষক পাঠাবে না বলে ঘোষণা দিয়েছে। ইসির অর্থহীন সাজানো নির্বাচনে দুই হাজার কোটি টাকা নয় ছয়ের হিসাব জণগণকে দিতে হবে।

তিনি বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারী) দুপুরে বিআরটিসি ষ্টেশন রোড় ফলমন্ডি এলাকায় সরকার পতনের একদফা দাবি ও ৭ জানুয়ারীর নির্বাচন বর্জনের আহ্বান জানিয়ে বিএনপির ডাকা অসহযোগ আন্দোলনের সমর্থনে জনমত তৈরির লক্ষ্যে গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণকালে এসব কথা বলেন।

তিনি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে স্থানীয় ব্যবসায়ী, দোকানদার ও সাধারণ মানুষের মাঝে লিফলেট বিতরণ করে আসন ভাগাভাগির একতরফা ডামি নির্বাচন বর্জন করার আহ্বান জানান।

এতে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর।

তিনি আরও বলেন, ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ সরকার যতই টালবাহানা করুক কোনো লাভ হবে না। তাদের ক্ষমতা ছেড়ে চলে যেতেই হবে।বিএনপির চলমান অসহযোগ আন্দোলনে জনগণ সাড়া দিয়ে বলছেন ‘আওয়ামী লীগ আর না, ডামি নির্বাচনে ভোট দেব না’। দেশের জনগণ, ভোটার ও সচেতন নাগরিকদের কাছে উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি আপনারা নিজে ভোট বর্জন করুন এবং ভোট বর্জনে অন্যকে উৎসাহিত করুন।

আবুল হাশেম বক্কর বলেন, বর্তমান সরকার দেশের জনগণকে জিম্মি করে ফেলেছে। এই সরকারের কাছে জনগণ কোনো অবস্থাতেই নিরাপদ নয়। বর্তমান সরকার বিনা ভোটের সরকার।

জনগণের প্রতি তাদের কোনো আস্থা নেই। তারা জোর করে ক্ষমতায় বসে আবারও ডামি নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা কুক্ষিগত করার পাঁয়তারা করছে। তাই সরকারকে পদত্যাগ ও কেয়ারটেকার সরকারে দাবি মানতে বাধ্য করা হবে। এই লক্ষ্যে গণআন্দোলন আরো জোরদার করা হবে।

এতে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা হাজী আবু ফয়েজ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ সাধারণ সম্পাদক আবদুল আহাদ রিপন, মাঈনুদ্দীন খান রাজিব।

এছাড়া মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এস এম সাইফুল আলমের নেতৃত্বে সকালে দেওয়ান হাট এলাকায় গার্মেন্টসের পোশাক শ্রমিকদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করা হয়। তাছাড়া মহানগর বিএনপির সদস্য এরশাদ উল্লাহ, চান্দগাঁও ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ইলিয়াছ চৌধুরী, জাফর আহমেদ, যুগ্ম সম্পাদক উসমান গণি ও কামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে মোহরা হামিদচর এলাকায়, মহানগর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য জাহাঙ্গীর আলম দুলালের নেতৃত্বে সরদার বাহাদুর স্কুল ক্যাম্প ও ফ্লোরা পাশ রোড এলকায়, কোতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আকতার খান, কোতোয়ালী থানা বিএনপির সহ সভাপতি আমিনুর রহমান মিয়া, সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান রিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল নাসের সাজ্জাদ, মহানগর যুবদলের সহ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন মিন্টুর নেতৃত্বে কোতোয়ালি মোড় ও ফিরিঙ্গী বাজার এলাকায়, ইপিজেড থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রোকন উদ্দিন মাহমুদের নেতৃত্বে ইপিজেড এলাকায়, মহানগর সেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু, যুগ্ম সম্পাদক জমির উদ্দিন নাহিদ, সিরাজুল ইসলাম ভূঁইয়া, জহিরুল হক টুটুল, হালিশহর থানা আহ্বায়ক কাফি মুন্নার নেতৃত্বে হালিশহর কে ব্লক বসুন্ধরা এলাকায়, মহানগর যুবদলের সি. সহ সভাপতি ইকবাল হোসেন, সম্পাদক মো. ইকবাল, হালিশহর থানা যুবদলের আহবায়ক মোশাররফ হোসেন সোহেল, সদস্য সচিব হাবিব উল্লাহ খান রাজুর নেতৃত্বে হালিশহর এলাকায়।

মহানগর যুবদলের সি. সহ সভাপতি ইকবাল হোসেন, পাঁচলাইশ থানা যুবদলের আহবায়ক মোহাম্মদ আলী সাকি, মহানগর যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক সেলিম উদ্দিন রাসেল, প্রচার সম্পাদক জিল্লুর রহমান জুয়েলের নেতৃত্বে খতিবের হাট এলাকায়, মহানগর যুবদলের সহ সভাপতি ফজলুল হক সুমন, পাহাড়তলী থানা যুবদলের সদস্য সচিব শওকত খাঁন রাজু, বন্দর থানা যুবদলের সি. যুগ্ম আহবায়ক মো. ইয়াছিনের নেতৃত্বে বন্দর এলাকায়, চাঁন্দগাও থানা যুবদলের আহবায়ক গোলজার হোসেন, নগর যুবদলের সহ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম ও থানা সেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক সাজিদ হাসান রনির নেতৃত্বে পূর্ব ষোলশহর শাহী আবাসিক এলাকায়, আকবর শাহ থানা যুবদলের সদস্য সচিব ইলিয়াছ খানের নেতৃত্বে ফিরোজ শাহ বিশ্ব কলোনি এলাকায়, বিএনপি নেতা আজিজ উদ্দিন মিন্টু ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক জমির উদ্দীন নাহিদের নেতৃত্বে বায়েজীদ বোস্তামী ক্যান্টমেন্ট এলাকায়, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সভাপতি আলিফ উদ্দিন রুবেলের নেতৃত্বে শোলক বহর এলাকায়, দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক রবিউল হোসেন রবির নেতৃত্বে শাহ আমানত ব্রীজ এলাকায়, দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব কামরুদ্দিন সবুজের নেতৃত্বে কর্ণফুলী ফকিরনীর হাট কাঁচা বাজার এলাকায়, আকবর শাহ থানা শ্রমিক দলের সভাপতি হেলাল উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম সুজনের নেতৃত্বে কর্নেল হাট এলাকায়, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সাজ্জাদ হোসেন খানের নেতৃত্বে বিবির হাট সুন্নিয়া মাদ্রাসা, নাজির পাড়া ও হিন্দু পাড়া এলাকায় গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করা হয়।

মন্তব্য করুন