নিউজ ডেস্ক

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি এখন আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে: ডা. শাহাদাত হোসেন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, পাকিস্তান আমলে এই আওয়ামী লীগ ২২ পরিবারের বিরুদ্ধে স্লোগান দিত। সেই আওয়ামী লীগ এখন ২২ হাজার লুটেরা পরিবার তৈরি করেছে। সেই পরিবার বাংলাদেশের সমস্ত সম্পদ লুণ্ঠন করে নিয়ে যাচ্ছে এবং লুটের নেতৃত্ব দিচ্ছে আওয়ামী লীগ। যখনই তারা ক্ষমতায় এসেছে, তখনই তারা লুট করেছে, সন্ত্রাস করেছে। মানুষের সব অধিকার কেড়ে নিয়েছে। আজকে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি এখন একটি আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের কথা শুনলেও মানুষ ততটা ভয় পান না, যতটা এখন দ্রব্যমূল্য নিয়ে পাচ্ছেন। পুষ্টিকর খাবার এখন দরিদ্র মানুষের কাছে রীতিমতো সোনার হরিণ।

তিনি শনিবার (২৩ মার্চ) বিকালে পূর্ব মাদারবাড়ী নছু মালুম লেইনে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে ৩০ নং পূর্ব মাদারবাড়ী ওয়ার্ড বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে সেহেরী ও ইফতার সামগ্রী বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

এতে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর ও আমীর খসারু মাহমুদ চৌধুরীর ছেলে ইসরাফিল খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ডামি ভোটে ক্ষমতায় এসে ব্যবসা বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ করছে সরকারি দলের লোকজন। তারা দেশের বিভিন্নপ্রান্ত থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাক থেকে গণহারে চাঁদা আদায় করছে। আর এর প্রভাব ভোক্তার উপর পড়ছে। নির্বাচিত সরকার না থাকায় সুবিধাভোগীরাই এসব ফায়দা লুটছে। যতদিন পর্যন্ত অনির্বাচিত সরকার ক্ষমতায় থাকবে, ততদিন এ দুর্ভোগ জনগণের উপর চেপে বসবে।

আবুল হাশেম বক্কর বলেন, বর্তমানে যারা ক্ষমতায় বসে আছে তাদেরকে সরকার বলা যাবে না। তারা জোর করে জনগণের ভোটের বাইরে ক্ষমতা দখল করেছে। ক্ষমতা টিকিয়ে রেখেছে শুধু লুটপাট করার জন্য। ডামি নির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ায় মানুষকে কষ্ট দেওয়ার জন্য।

ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মো. কামরুল ইসলাম, মহানগর বিএনপির সাবেক অর্থনৈতিক সম্পাদক মশিয়ুল আলম স্বপন, পশ্চিম মাদারবাড়ী ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, সদরঘাট থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহেদ হোসেন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, সহ সাধারণ সম্পাদক আবদুল আহাদ রিপন, কমল জৌতি বড়ুয়া, মহানগর ছাত্রদলের আহবায়ক সাইফুল আলম, বিএনপি নেতা আজিজুল ইসলাম বাদল, নাসির উদ্দীন, হাজী আমির আহমেদ, হাজী আলী আহমদ, সিরাজ মিয়া মানু, তসলিম উদ্দিন, জামশেদ হায়দার, ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি আবু তালেব লিটন, সদরঘাট থানা ছাত্রদলের সদস্য সচিব কায়সার হোসেন রাব্বি, ছাত্রদল নেতা মো. ইফতি প্রমূখ।

 

মন্তব্য করুন