নিউজ ডেস্ক

চট্টগ্রামের লালখান বাজার মোড়ে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের দাবি করলেন আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির তরুণ নেতারা

২৬ জুন, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের লালখান বাজার মোড়ে ঝুঁকিমুক্ত নিরাপদ পথচারী পারাপারে দেশের প্রধান তিন দল আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির তরুণ নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে একযোগে ফুটওভার ব্রিজ নির্মানের দাবি জানিয়েছেন। তরুণ নেতারা হলেন, বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের চট্টগ্রাম মহানগর এর সদস্য নাজমা সুলতানা নুপুর, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের চট্টগ্রাম মহানগর এর সমাজ কল্যাণ সম্পাদিকা, অ্যাডভোকেট বিলকিস আরা মিতু এবং জাতীয় পার্টির চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির যুগ্ম সাহিত্য সংস্কৃতি ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আশিকুর রহমান।
সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেন, লালখান বাজারের ইস্পাহানী মোড়টি চট্টগ্রাম মহানগরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এলাকা, কিন্তু তা পথচারীদের রাস্তাপারারের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এবং অনিরাপদ। এ স্থানে নগরীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ আখতারুজ্জমান চৈৗধুরী ফ্লাইওভার ও নগরীর প্রধান লাইফ লাইন সিডিএ এভিনিউ/এম এম আলী সড়কের সংযোগস্থল হওয়ায় প্রতিনিয়ত বিপূল সংখ্যক যানবাহন চলাচল করে। সেই সাথে চকবাজার, কাজীরদেউরি, ওয়াসা, হাইলেবেল সড়কের সংযোগস্থল হওয়ায় প্রতিনিয়ত বিপুলসংখ্যক পথচারী পারাপার করে থাকেন। ফুটওভার ব্রিজ না থাকায় রাস্তা পারাপারে প্রায় এই স্থানে দূর্ঘটনার ঘটে থাকে, সেই সাথে নগরবাসী এই স্থানে তীব্র যানজটের সম্মুখীন হোন। তারা বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ এবং অনিরাপদ লালখানবাজার মোড়কে নিরাপদ করতে চট্টগ্রামবাসীর বহুদিনের দাবী, লালখানবাজার মোড়ে ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণ।
এর প্রয়োজনীয়তা বিষয়ে তারা আরও বলেন, লালখান বাজার মোড় হয়ে প্রতিদিন নগরীরর স্বনামধন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম কলেজ, মহসিন কলেজ, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়, ডা. খাস্তগীর স্কুল, মহসিন স্কুল, চট্টগ্রাম সরকারী স্কুল, আইডিয়াল স্কুল এর হাজার হাজার শিক্ষার্থী নিয়মিত যাতায়াত করে থাকে। এর পাশাপাশি জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ, চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ, চট্টগ্রাম ক্লাব, চট্টগ্রাম লেডিস ক্লাব, চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সিটিটিউট সহ জাতীয় ও জনগুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় বিপুল সংখ্যক জনসাধারন যাতায়াত করেন। যা লালখান বাজার মোড় ও এই সংলগ্ন সড়কটি নগরীর যোগাযোগ ব্যবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ করে তুলেছে। এই মোড় সংলগ্ন সড়কটি মাত্রাতিরিক্ত যানবাহনের চলাচলের জন্য সবসময় ব্যস্ত থাকে। সেই সাথে এই মোড়ের পথচারী ও সাধারন জনগন রাস্তা পারাপারের জন্য অনেক ঘুরপথ দিয়ে যেতে হয়, এবং বিপরীত দিকের রাস্তা পারাপারের জন্য কোন ফুটওভার ব্রীজ নেই বিধায় অনেকে দ্রুত রাস্তা পার হতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটার ব্যাপক আশংঙ্কা থাকে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এই সড়কে বিভিন্ন সময়ে দুর্ঘনার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। তাদের এই পারাপারকে শংঙ্কামুক্ত রাখতে উক্ত স্থানে একটি ফুটওভার ব্রীজ নির্মান অত্যন্ত প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে বলে তারা উল্লেখ করেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থেকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরশেন এর ১৪ নং লালখান বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর জনাব আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল, অনতিবিলম্বে লালখান বাজার মোড়ে চতুর্মূখী ও কার্যকর নারী, বৃদ্ধ, শিশু ও প্রতিবন্ধী বান্ধব আধুনিক লিফট সমৃদ্ধ একটি ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণ করার দাবী জানান। পাশাপাশি এই ফুট ওভার ব্রীজ নির্মাণে পরিবেশ বিনষ্ট করে লালখান বাজার মোড়ে কোন শতবর্ষী ও অন্যান্য গাছ না কাটার দাবী জানান।
ইউএসএআইডি এর সহায়তায়, আর্ন্তজাতিক সংস্থা ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এর “স্ট্রেনদেনিং পলেটিক্যাল ল্যান্ডস্কেপ ইন বাংলাদেশ” নামক প্রকল্পের আওতায় ইয়ং লিডার ফেলোশিপ প্রোগ্রামের ২৪তম ব্যাচে এই তিন তরুণ নেতা অংশগ্রহণকারী। এবিষয়ে গত মে মাস থেকে তারা অ্যাডভোকেসি কার্যক্রম শুরু করেন।
এই কার্যক্রমের আওতায় তরুণ ফেলোগন পারস্পরিক ও নিজ নিজ দলের স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সহায়তায় চট্টগ্রাম মহানগরের নাগরিকদের সাথে ফুটওভার ব্রিজ নির্মানের বিষয়ে বিভিন্ন স্থানে আলাপ অলোচনা করেন এবং সমস্যা সমাধানের দাবী সম্বলিত, স্থানীয় তিন শতাধিক স্থানীয় নাগরিকদের কাজ থেকে গনস্বাক্ষর সংগ্রহ করেন।
উল্লেখ্য এই ফুটওভার ব্রিজ নির্মানে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরশেন এর ১৪ নং লালখান বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর জনাব আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল এর নেতৃত্বে স্থানীয় জনসাধারন সহ চট্টগ্রামের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগনও দীর্ঘদীন যাবৎ দাবি জানিয়ে আসছিলেন। লালখানবাজার মোড়ে ফুটওভার ব্রিজ নির্মানের দাবী সম্বলিত একটি স্মারক আবেদন গত ১০ই জুন, ২০২৪ ইং তারিখে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এ তারা প্রদান করেন। মেয়রের পক্ষে ভারপ্রাপ্ত মেয়র আফরোজা জহুর আবেদনটি গ্রহন করেন, এসময়ে আরো উপস্তিত ছিলেন কাউন্সিলর গোলাম মো. জোবায়ের এবং কাউন্সিলর শাহীন আকতার রোজী। এসময়ে ভারপ্রাপ্ত মেয়র আফরোজা জহুর, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনার জন্য মেয়র মহোদয়কে অনুরোধ করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন। পরবর্তীতে বিগত ১১ই জুন, ২০২৪ ইং তারিখে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউনুস বরাবর আরো একটি স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। একই সাথে এই স্মারক আবেদনের অনুলিপি সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর জনাব আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল’কে প্রদান করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে তারা চট্টগ্রাম নগরীর লালখান বাজার মোড়ে দীর্ঘদিনের জনদুর্ভোগ লাঘব, দূর্ঘটনা প্রতিরোধ, যানজট নিরসন, পথচারী পারপার নির্বিঘ্ন করতে অনতিবিলম্বে একটি ফুটওভার ব্রিজ নির্মানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও সিডিএ’র নিকট জোর দাবি জানান।
সংবাদ সম্মেলেনে আরো উপস্থিত ছিলেন ডিআই এর সিনিয়র ফেলো ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চট্টগ্রাম মহানগরের সদ্য বিলুপ্ত আহবায়ক কমিটির সদস্য সিনিয়র আইনজীবি এডভোকেট মফিজুল হক ভূইয়া, মাল্টিপার্টি অ্যাডভোকেসী ফোরাম (এমএএফ) চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক ও ডিআই এর তরুণ রাজনৈতিক ফেলো মোঃ জসিম উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগ চট্টগ্রাম মহানগর আহবায়ক কমিটির সদস্য ও ডিআই এর তরুণ রাজনৈতিক ফেলো জিন্নাত সুলতানা ঝুমা, ডিআই এর তরুণ রাজনৈতিক ফেলো জিয়াউল হক সোহেল, চট্টগ্রাম আইন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম রাফি, ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এর সিনিয়র রিজিওনাল ম্যানেজার মোঃ সদরুল আমিন, রিজিওনাল কোঅর্ডিনেটর মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান, ইলেকটোরাল প্রোগ্রাম অ্যাসোসিয়েট তামান্না আহমেদ বহ্নি ও সিনিয়র অপারেশনস অ্যাসিসট্যান্ট আবুল হাসান চৌধুরী রনি।

মন্তব্য করুন